ভূঞাপুরে খসে পড়ছে পোস্ট অফিস ভবনের পলেস্তার আট মাস ধরে নেই বিদ্যুৎ
ভূঞাপুরে খসে পড়ছে পোস্ট অফিস ভবনের পলেস্তার আট মাস ধরে নেই বিদ্যুৎ

ভূঞাপুরে খসে পড়ছে পোস্ট অফিস ভবনের পলেস্তার আট মাস ধরে নেই বিদ্যুৎ

নিজস্ব প্রতিবেদক : টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলার সদর পোস্ট অফিসের বেহাল অবস্থায় চলে দাপ্তরিক কার্যক্রম। বর্তমান ইন্টারনেটের যুগে চিঠি আদান প্রদানের মাধ্যম পোস্ট অফিসের গুরুত্ব কমলেও বেড়েছে টাকা আদান প্রদান ও সরকারি কাগজ পত্রের। কিন্তু বাড়েনি জনবল, অবকাঠামোর উন্নয়ন, পুরোনো সেই পদ্ধতিতেই চলছে ভূঞাপুর পোস্ট অফিসের কার্যক্রম। বর্তমান ডিজিটাল যুগেও কম্পিউটার সিস্টেমের কোন ছোঁয়া লাগেনি এই পোস্ট অফিসে। নেই কোন নিরাপত্তা ব্যবস্থা। দীর্ঘ আট মাস ধরে নেই বিদ্যুৎ । শুধু মাত্র পোষ্ট মাস্টারের টেবিলে একটি সোলারের টেবিল ফ্যান, একটি লাইট জ্বলে। বাকী সব জায়গায় দিনের বেলাতেও অন্ধকার। এ ব্যপারে পোষ্ট মাস্টার সাদিয়া সুলতানা বলেন, নির্মাণ ত্রুটির কারনে বিল্ডিংয়ের ছাদ দিয়ে পানি পড়ে সমস্ত ওয়ারিং নষ্ট হয়ে গেছে। ফলে বড় ধরণের দুর্ঘটনার ভয়ে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে রাখা হয়েছে। অপর দিকে চারটি ফ্যানের মধ্যে তিনটিই নষ্ট। উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে লিখিত ভাবে জানানো হলেও কোন সুরাহা হয়নি। আর্থিক কর্মকান্ড বাড়লেও জনবল ও অবকাঠামোর উন্নয়ন হয়নি। বিল্ডিংয়ের পলেস্তার খসে খসে পড়ছে। লেনদেন থাকার কারনে মানুষের ভিড়ে আরো গরম বেড়ে যায়। তখন অফিসে ফ্যান বিহীন টিকে থাকাই মুসকিল হয়ে পড়ে। এ ছাড়া দরজা জানালা ভাঙা। কোন রকমে কলাপ্সেবল দরজা দিয়ে আটকিয়ে রাখা হয় মূল গেট। বাহিরের পোষ্ট বক্সের ডাকনা ভাঙা অনায়েসে যে কেউ সেখান থেকে গুরুত্বপুর্ণ চিঠি নিয়ে যেতে পারবে। নাইট গার্ড ভান্ডারি শাহাদত হোসেন বলেন পোষ্ট অফিসের তিনটি গেট একটি চাবি একটি তালা আছে মাত্র। এমতাবস্থায় এখনই কার্যকর ব্যবস্থা না নিলে যে কোন সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে।

ভূঞাপুরে খসে পড়ছে পোস্ট অফিস ভবনের পলেস্তার আট মাস ধরে নেই বিদ্যুৎ
ভূঞাপুরে খসে পড়ছে পোস্ট অফিস ভবনের পলেস্তার আট মাস ধরে নেই বিদ্যুৎ

পরিচিতি ইব্রাহীম ভূইয়া

এটাও চেক করতে পারেন

ভূঞাপুরে গরুবাহী ট্রাকের ধাক্কায় অবসরপ্রাপ্ত এক পুলিশ সদস্য নিহত

নিজস্ব প্রতিবেদক: টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে বাড়ি ফেরার পথে গরুবাহী ট্রাকের ধাক্কায় আলাউদ্দিন খান (৭৫) নামে অবসরপ্রাপ্ত এক …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *